বর্ষায় সতেজ ও সুন্দর থাকবেন কীভাবে?

বর্ষায় পরিবেশগত পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগে আমাদের ব্যক্তিগত পরিচর্যায়। এ সময় ত্বক ও চুলে দেখা দেয় বিভিন্ন সমস্যা। ত্বকের ওপর একটা ভেজা ময়লা আস্ত্মরণ, ব্রণ,র্ যাশ, হাত, পা ও পায়ের আঙুলের ফাঁকে ঘা হয়। মুখের ত্বকে ছৌদ হওয়া, ত্বকের রং কালো হওয়া, চুলকানি, ফাঙাশ, ইনফেকশন ইত্যাদি।

এসব সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে প্র্রথমেই দরকার ত্বকের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা। এ জন্য সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকুন। শরীর শুকনো রাখুন। বর্ষায় সুন্দর থাকতে জেনে নিন কিছু টিপস।

—      শরীরের বিভিন্ন ভাঁজ যেখানে ঘাম বেশি হয়, সেসব স্থান শুকনো রাখার ব্যবস্থা করতে হবে।

—      মুখ ঘেমে গেলে অথবা চিটচিটে হয়ে গেলে ঘষাঘষি করে মোছা উচিত না। এতে ফাঙাশ আরও ছড়িয়ে পড়বে এবং র্যাশও বৃদ্ধি পাবে। টিস্যু দিয়ে মুখ হালকাভাবে মুছে ফেলতে হবে অথবা পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে ফেলতে হবে।

—      অয়েলবেসড ক্রিম ক্লিনজার বা ক্রিম ব্যবহার না করা ভালো। ওয়াটারবেসড ক্লিনজার, ফেস প্যাক, স্ক্রাব বা ক্রিম ব্যবহার করা ভালো।

—      গোসলের সময় কিংবা ফ্রেশ হওয়ার সময় সাবান বেশি ব্যবহার না করে স্বাভাবিক পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

—      নিজের ত্বককে ধুলা ও জীবাণুমুক্ত রাখার জন্য দিনে দুবার ত্বক পরিষ্কার করে টোনার লাগানো যেতে পারে।

—      ক্লিনজার টোনার অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল হওয়া দরকার।

—      অবশ্যই পিএইচ ব্যালেন্স দেখে ফেসওয়াশ ও টোনার কিনতে হবে।

—      ঘুমাতে যাওয়ার সময় কখনো মেকআপ নিয়ে ঘুমাতে যাওয়া ঠিক নয়। অবশ্যই মেকআপ ভালোভাবে তুলে নিতে হবে।

—      বৃষ্টির মৌসুমে ত্বকের ময়েশ্চারাইজার দরকার।

—      যারা রান্নাবান্না করেন, তারা সঙ্গে সঙ্গে একটু লোশন আলতো করে মুখে ঘষে নিতে পারেন। তাই বলে আবার পরিমাণ যেন বেশি না হয়।

—      যাদের ত্বক খুব বেশি তেলতেলে, তারা অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন। হাতের কাছে ময়েশ্চারাইজার না থাকলে কয়েক ফোঁটা তেল পানিতে মিশিয়ে ত্বকে লাগানো যেতে পারে। বর্ষায় ত্বকে ময়লা জমে, তাই এ সময় মাস্ক ব্যবহার করাটা আবশ্যিক বলা যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে সপ্তাহে এক দিন বাড়িতে বসেই ঘরে থাকা উপকরণ দিয়ে নিজের জন্য ফেসপ্যাক তৈরি করে ব্যবহার করা যেতে পারে।

—      ঘুমাতে যাওয়ার আগে রাতে একটু দুধ বা শুধু পানিতেও এক মুঠো মসুর ডাল ভিজিয়ে রেখে সকালে পরিষ্কার পাটায় ডাল বেটে অথবা মিহি থাকলে তাতে ডাল গ্রাবও করে নিতে পারেন। খেয়াল রাখুন, যেন একেবারে মিহি পেস্ট না হয়ে যায়, খানিকটা দানা যেন থাকে। এটি মুখে লাগিয়ে নিন। ১৫ মিনিট পর পানিতে ধুয়ে ফেলুন। ধোয়ার সময় আলতো করে ঘষে ঘষে তুলবেন। তাহলে ত্বকের ময়লা ও মরা কোষগুলো সহজেই বেরিয়ে আসবে। মসুর ডাল বাটার মিশ্রণে দুধ ছাড়াও কাঁচা হলুদ বাটায় কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। এই মিশ্রণ আপনার ত্বকে এনে দেবে সজীবতা।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *