হাওয়া বদলের রাজনীতি | সময় বিচিত্রা
হাওয়া বদলের রাজনীতি
মাহমুদ আল ফয়সাল
17_9

ইফতার রাজনীতি পেরিয়ে ঈদ; তারপর শুরু হাওয়া বদলের রাজনীতিসেই রাজনীতির গতিপ্রকৃতি কোন দিকে যাবে; দুর্বার আন্দোলন নাকি সংঘাতের পথ ধরে রাজপথ রক্তে রঞ্জিত হবে-এই দুই আশঙ্কার দোলাচলের কথাই বলছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরাতবে বেশির ভাগ বিশ্লেষক মনে করেন, নাটকীয় কোনো ঘটনার সূত্র ধরে রাজনীতি নির্বাচনের দিকেই এগোবেসেই নির্বাচনে বিএনপি যোগ দেবে কি না, এ নিয়েও বিশ্লেষকেরা দ্বিধাবিভক্তকেউ বলছেন, মাঠের ইশারা বুঝতে পারলে নির্বাচন থেকে পিছপা হবে না বিএনপিকেউ বলছেন, নির্বাচনে গেলেই হলো না; সরকারি ফাঁদে পা দিলে ক্ষমতায় যাওয়ার সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে যেতে পারেআবার বিশ্লেষকদের একাংশের ধারণা, ক্রমেই সংশয় বাড়ছে; নির্বাচনের সম্ভাবনা কমে আসছে

 

রমজান মাসজুড়েই চলে ইফতার রাজনীতিরাজধানীর অভিজাত হোটেল থেকে একেবারে প্রত্যন্ত এলাকা পর্যন্ত ইফতারের এই সংস্কৃতি ডালপালা মেলে বসেইফতারের আদলে আগামী নির্বাচনকে ঘিরে প্রচারণা ও দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে ভাববিনিময়ের মোক্ষম সুযোগ নেন নেতারাকর্মীরা মনে করেন, তাদের মূল্যায়নের দিন আসছেএই বাস্তবতাকে বিবেচনায় এনে আওয়ামী ও বিএনপির পাশাপাশি জাতীয় পার্টিসহ অন্য দলগুলোর সম্ভাব্য সংসদ পদপ্রার্থীরা নির্বাচনী এলাকায় ছোটাছুটি করতে থাকেন

 

এই আসা-যাওয়া ও নির্বাচনকেন্দ্রিক প্রাণচাঞ্চল্যকে বিবেচনা করে চট্টগ্রাম আবাহনীর প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব আলহাজ দিদারুল আলম চৌধুরী বলেন, ৩০০ আসনকেন্দ্রিক নির্বাচনী একটি গরম পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছেএই প্রচারণায় আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ কেউ পিছিয়ে থাকতে নারাজফলে ঢাকায় কী সিদ্ধান্ত হলো; দল নির্বাচনে যাচ্ছে কি যাচ্ছে না, সেই চিন্তায় কেউ বসে নেইআওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ সবাই মাঠে নেমে গেছেএই অবস্থা থেকে ফিরে আসা কঠিন হবে

 

বিএনপি নির্বাচনে না গেলে চরম ভুল করবে-এমন মন্তব্য ছুড়ে দিয়ে দলটির সাবেক সাংসদ মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান বলেন, গ্রামগঞ্জের মানুষ তত্ত্বাবধায়ক বা নির্দলীয় বোঝে না; তারা বিএনপিকে ভোট দেওয়ার জন্য বসে আছেমানুষের পালস বুঝতে হবেমানুষ ভোট দিলে কোনো ম্যাকানিজমই বিএনপির বিজয় ঠেকাতে পারবে নাতবে দলের সাবেক আরেক সাংসদ আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়াম বলেছেন, মানুষ ভোট দিলেও জয় আটকে দেওয়া সম্ভবএ কারণেই তত্ত্বাবধায়ক ইস্যুতে বিএনপি এতটা সোচ্চারমানুষ বিএনপিকে চায়; তারা ভোট দেওয়ার জন্য বসে আছে; তবে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকে নির্বাচন করলে শেষ পর্যন্ত কী হবে বলা মুশকিল

 

বিএনপির সাবেক এই দুই সাংসদের যুক্তির লড়াইয়ে কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজমেজর আখতার বলেন, সরকার শত চেষ্টা করেও পাঁচটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের কোথাও নিজেদের বিজয় নিশ্চিত করতে পারেনিপ্রতিটি ক্ষেত্রেই তারা ভীষণভাবে ধরাশায়ী হয়েছেঅতএব, পিপলস উইলের কাছে যেকোনো ষড়যন্ত্র জলাঞ্জলি যাবেআর খৈয়াম বললেন, প্রধান দুই দলের সারা দেশের নেতারা সক্রিয় অংশ নেওয়ার পরও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে ৭০ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়নি; যেখানে কোনো কোনো সংসদীয় আসনের নির্বাচনী ৯০ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়এই হিসাবের ২০ শতাংশ ভোটই বেশির ভাগ আসনের ফলাফল বদলে দেওয়ার জন্য যথেষ্টতবে তারা দুজনই মনে করেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে বিএনপির জয় শতভাগ নিশ্চিত

 

আওয়ামী লীগের সাংসদ ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল বীর প্রতীক মনে করেন, গ্রামীণ জনপদে নির্বাচনের আবহ তৈরি হয়ে গেছেতত্ত্বাবধায়ক হোক আর অন্তর্বর্তী সরকারের অধীনে হোক-শেষ পর্যন্ত আলোচনার মধ্য দিয়ে একটি সমঝোতায় সরকার ও বিরোধী দল আসবে এবং সব দলের অংশগ্রহণে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবেআওয়ামী লীগের আরেক সাংসদ অপু উকিল মনে করেন, আওয়ামী লীগের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব-সেটা বারবার প্রমাণিত হয়েছেআগামী নির্বাচনও দলীয় সরকারের অধীনে হবেনির্বাচনী ফলাফলের ব্যাপারে ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল ও অপু উকিল দুজন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন জোট জয়ী হবে বলে মনে করেন

 

আলোচনার টেবিলে কিংবা পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি সহজ মনে হচ্ছেতবে বাস্তবে নির্বাচনকেন্দ্রিক আলোচনায় সন্দেহ-সংশয় অনেকের মনেইমুক্তিযুদ্ধে গেরিলা কমান্ডার মামা বাহিনীর প্রধান শহিদুল হক মামা মনে করেন, নির্বাচনকে ঘিরে গুমোট ভাব ঝড়ে রূপ নেবে নাকি বৃষ্টির মধ্য দিয়ে পানিতে পরিণত হবে তা এখনো পরিষ্কার নয়তিনি মনে করেন, বিএনপির রাজনীতিতে জামায়াত হচ্ছে অন্যতম নিয়ামকতাদের মতামতের ওপর গুরুত্ব দেবে বিএনপিসে ক্ষেত্রে জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের কারও কারও ফাঁসি কার্যকর কিংবা দলটির রাজনীতি নিষিদ্ধ হলে নতুন সমীকরণ খুঁজবে তারা

 

রোজার রাজনীতিতে সরব আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম ও উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, নির্ধারিত সময়ে এবং অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবেতারা দুজনই দাবি করেছেন, সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট জয় লাভ করবেবিএনপিকে আন্দোলনের পথে না হেঁটে নির্বাচনমুখী হওয়ার পরামর্শ দিয়ে এই দুই নেতা বলেছেন, আওয়ামী লীগকে আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে লাভ নেইঈদের পর আওয়ামী লীগও রাজপথে অবস্থান নেবেদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, মাঠপর্যায়ে দলীয় জরিপের রিপোর্টের উদ্ধৃতি দিয়েই প্রধানমন্ত্রীপুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়ের বিষয়টি জোর দিয়ে বলেছেনএ নিয়ে বিএনপি নেতাদের বিভ্রান্তি না ছড়ানোর তিনি আহ্বান জানান

 

অন্যদিকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এম কে আনোয়ার, আ স ম হান্নান শাহ, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া জোর দিয়ে বলেছেন, সরকার অনতিবিলম্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা পুনর্বহালের উদ্যোগ না নিলে লাগাতার আন্দোলন দিয়ে সবকিছু অচল করে দেওয়া হবেতাদের দাবি, সজীব ওয়াজেদ জয়ের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে আগামী নির্বাচনকে ঘিরে সরকারের নীলনকশার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছেবিএনপি নেতারা স্পষ্ট করে বলেছেন, দলীয় সরকারের অধীনে দেশে কোনো নির্বাচন হবে না; হতে দেওয়া হবে নাএ ধরনের চেষ্টা করা হলে উদ্ভূত পরিস্থিতির দায়দায়িত্ব বর্তমান সরকারকেই বহন করতে হবে

 

আওয়ামী লীগ-বিএনপির মুখোমুখি অবস্থানের বিপরীতে জাতীয় পার্টি ব্যাপকমাত্রায় নির্বাচনী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেপার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, যেকোনো পরিস্থিতিতে তার দল আগামী নির্বাচনে অংশ নেবেরাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন, বিএনপিকে বাইরে রেখে নির্বাচনী প্রক্রিয়া শুরু হলে তাতে যোগ দেবে জাতীয় পার্টিসে ক্ষেত্রে প্রধান একটি দলকে বাদ দিয়ে নির্বাচন হলে তা কতটা গ্রহণযোগ্য হবে-তা নিয়েই প্রশ্ন সবারঅবশ্য দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়কারী আলহাজ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান আতিক বলেছেন, সব দলের অংশগ্রহণেই নির্বাচনের পক্ষে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদতত্ত্বাবধায়ক ইস্যুতে দলের অবস্থান সম্পর্কে তিনি বলেন, দেশের বেশির ভাগ মানুষ চাইলে সাবেক রাষ্ট্রপতিরও সমর্থন থাকবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রতি

 

অতীশ দীপঙ্কর গবেষণা পরিষদের চেয়ারম্যান, কবি ও সংগঠক গোলাম কাদের মনে করেন, জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি ম্যাচে বিএনপি ৫-০ গোলে জয় লাভ করেছেতবু তারা আওয়ামী লীগের রেফারি ও লাইন্সম্যান রেখে নির্বাচনে গেলে কতটা ভালো করতে পারবে, এ নিয়ে হিসাব-নিকাশ চলছেবাস্তবতা হচ্ছে, ঈদের পর রাজনীতির হাওয়া বলে দেবে, তাদের কী করা উচিতসময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারলেই আগামী দিনে বিএনপির ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হবেকী ধরনের পরিস্থিতি হতে পারে, এমন প্রশ্নে গোলাম কাদের বলেন, রাজনীতিতে হাওয়া বদল শুরু হতে পারেঘটতে পারে নাটকীয় কোনো ঘটনা; যা পাল্টে দেবে পুরো পরিস্থিতিসে ক্ষেত্রে বিএনপি আন্দোলন শুরুর পাশাপাশি নির্বাচনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে বসতে পারে

 

রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এ কে এম পাটোয়ারী মনে করেন, সরকার ও বিরোধী দলের অবস্থান স্পষ্টতই দ্বিধাবিভক্তএরই মাঝে জামাতের নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণার মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক পরিস্থিতি নতুন সমীকরণে অগ্রসর হচ্ছেযা থেকে স্পষ্ট হচ্ছে, সংলাপ সমঝোতার সম্ভাবনা ক্রমেই তিরোহিত হচ্ছে; বাড়ছে সংঘাত সংঘর্ষের আশঙ্কাএই পরিস্থিতির উত্তরণ ঘটিয়ে রাজনীতির ময়দানে নির্বাচনী হাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করেন এ কে এম পাটোয়ারীআরেক রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও লেখক আবু আল সাঈদ মনে করেন, রাজনীতি ক্রমেই জটিল হয়ে পড়ছে

 

রোজায় রাজনীতি যতই ঘেরাটোপে দাপাদাপি করুক না কেন; ঈদের পরই বদলে যাবে হাওয়া; এমন ধারণা ব্যক্ত করে কোনো কোনো বিশ্লেষক মনে করেন, ঈদের পর আন্দোলনের তোড়জোড় হলেও সবকিছু পাল্টে দিয়ে নির্বাচনকেন্দ্রিক হয়ে উঠবে সবকিছুসাবেক একজন সামরিক কর্মকর্তা এমন মন্তব্য করেনযুক্তি হিসাবে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন গণ-প্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশ সংশোধনের নামে নতুন আলোচনার জন্ম দিয়েছেঈদের পর তারা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপের নাটকীয় উদ্যোগ নিলেই বদলে যাবে দৃশ্যপটসেই আলোচনাকে ঘিরে রাজনীতি পাবে নতুন গতিদলে দলে শুরু হবে প্রার্থী বাছাইয়ের কাজতার সূত্র ধরে শুরু হবে দল বদলের হিড়িকআর দ্রুত বদলে যেতে থাকবে রাজনীতির হাওয়া

 


আপনাদের মতামত দিন:


সকল খবর
চলমান প্রচ্ছদ